NCTB Class 7 Bengali Chapter 1 তোতাকাহিনী Solution


Warning: Undefined array key "https://nctbsolution.com/nctb-class-7-bengali-solution/" in /home/862143.cloudwaysapps.com/hpawmczmfj/public_html/wp-content/plugins/wpa-seo-auto-linker/wpa-seo-auto-linker.php on line 192

NCTB Class 7 Bengali Chapter 1 তোতাকাহিনী Solution

Bangladesh Board Class 7 Bengali Solution Chapter 1 তোতাকাহিনী Exercises Question and Answer by Experienced Teacher. NCTB Class 7 Bengali Solution Chapter 1 তোতাকাহিনী.

NCTB Solution Class 7 Chapter 1 তোতাকাহিনী :

Board NCTB Bangladesh Board
Class 7
Subject Bengali
Chapter One
Chapter Name তোতাকাহিনী

NCTB Class 7 Bengali Chapter 1 তোতাকাহিনী Solution

(১) রাজা কাকে শিরোপা দিলেন?

(ক) মন্ত্রী

(খ) কোতোয়াল

(গ) ভাগিনা

(ঘ) রাজপণ্ডিত

উত্তর : (খ) কোতোয়াল

(২) পণ্ডিতদের মতে পাখির অবিদ্যার কারণ হলো-

(ক) বাসা জীর্ণ ও সংকীর্ণ

(খ) কায়দাকানুন না জানা

(গ) শাস্ত্র পড়তে না পারা

(ঘ) রাজ দরবারের অবহেলা

উত্তর : (ক) বাসা জীর্ণ ও সংকীর্ণ

উদ্দীপকটি পড়ে ৩ ও ৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও ।

রূপমের বাবা অফিসের কাজে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ব্যস্ত থাকেন। রূপমের চঞ্চলতা ও দুরন্তপনা কমানোর জন্য মা স্কুল, কোচিং ও ধর্মীয় শিক্ষকের পাশাপাশি বাসায় নাচ, গান ও আর্টের শিক্ষক নিয়োগ করেন। রূপমের লেখাপড়ার এতসব আয়োজনের খবর শুনে বাবা খুশি হন এবং স্ত্রীকে প্রয়োজনীয় অর্থ সরবরাহ করতে থাকেন। আস্তে আস্তে রূপমের চঞ্চলতা কমতে থাকে, শরীর খারাপ হয়, খাবার খেতে চায় না এবং চূড়ান্তভাবে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

(৩) রূপমের বাবার চরিত্রের সাথে তোতা কাহিনীগল্পের কোন চরিত্রের সাদৃশ্য খুঁজে পাওয়া যায়?

(ক) স্ত্রী

(খ) রাজা

(গ) মাসতুতো ভাই

(ঘ) পুঁথিলেখক

উত্তর : (খ) রাজা

(8) ‘তোতা কাহিনীগল্পের কোন বিষয়টি রূপমের শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ার ইঙ্গিতবাহী?

(ক) মাত্রাতিরিক্ত শাসন

(খ) শিক্ষার নামে অতি আয়োজন

(গ) স্কুলের কঠোর নিয়ম-কানুন

(ঘ) শিক্ষার প্রতি আগ্রহ

উত্তর : (খ) শিক্ষার নামে অতি আয়োজন

সৃজনশীল প্রশ্ন :

মনির সাহেবের একমাত্র সন্তান অমিত। সে প্রচণ্ড অলস, অকর্মণ্য পড়াশোনায় মনোযোগ নেই। কিন্তু বাবার ইচ্ছা ছেলেকে উচ্চশিক্ষিত ও প্রতিষ্ঠিত করা। ছেলেকে বিদ্যা শেখানোর জন্য অনেক শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হলো, অসংখ্য বই-পত্র, দিস্তা দিস্তা কাগজ-কলম এনে জড়ো করা হলো। নামকরা বিদ্যালয়ে ভর্তি করানো হলো। বিদ্যালয়ে যাতায়াতের জন্য গাড়ি কেনা হলো। সবাই মনির সাহেবের প্রশংসা করতে লাগলো।

(ক) রাজা নিন্দুককে কী দিতে বলে দিলেন?

উত্তর :  রাজা হাতিতে ওঠার সময় কানমলা সর্দারকে বলে গেলেন নিন্দুকের যেন আচ্ছা করে কানমলা দেওয়া হয়।

(খ) “পাখিটার শিক্ষা পুরা হইয়াছে- একথা কেন বলা হয়েছে?

উত্তর : শিক্ষার অতি আয়োজনের চাপে পাখিটা দিন দিন ভদ্র-দস্তুর মতো আধমরা হয়ে পড়লো। পন্ডিতেরা বললো উন্নতি হয়েছে। পাখিটা আস্তে আস্তে খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দিলো, অসুস্থ হয়ে পড়লো। সকালে ডানা ঝাপটায় বলে পাখিটার ডানা দুটোও কাটা গেলো। একসময় পাখিটা মৃত্যুবরণ করিল। পাখিটা এখন আর লাফায় না, আকাশে উড়ে না, আর গান করে না, খাবার না পেলে এখন আর চেঁচায় না। পাখিটা এখন আর কোনো বেয়াদপি করে না। তাই বলা হলো যে পাখিটার শিক্ষা পুরা হইয়াছে।

(গ) তোতা কাহিনীগল্পের কোন দিকটি মনির সাহেবের চরিত্রে প্রতিফলিত হয়েছে? ব্যাখ্যা কর।

উত্তর : “তোতা কাহিনী” গল্পের রাজার শিক্ষার অতি আয়োজনের দিকটি মনির সাহেবের চরিত্রে প্রতিফলিত হয়েছে। গল্পের রাজার মতোই মনির সাহেব তার ছেলেকে শিক্ষিত করার জন্য অনেক শিক্ষককে নিয়োগ করলো, অসংখ বই-পত্র আনা হলো। ঘরের ভেতর খাতা কলমের পাহাড় লেগে গেলো। নামকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তাকে ভর্তি করা হলো। বিদ্যালয়ে যেতে যাতে কোনো অসুবিধা না হয় তার জন্য নতুন গাড়ি কেনা হলো। এর ফলে সবাই মনির সাহেবের সুনাম করিতে লাগিল।

(ঘ) উদ্দীপকে বর্ণিত শিক্ষা নিয়ে বাড়াবাড়ির দিকটি তোতা কাহিনীগল্পের আলোকে মূল্যায়ন কর।

উত্তর : আলোচ্য গল্পের মতো এখানেও শিক্ষা নিয়ে বাড়াবাড়ি করা হয়েছে। মনির সাহেব তার একমাত্র পুত্র অমিতকে উচ্চশিক্ষিত ও প্রতিষ্ঠিত করতে চায়। কিন্তু অমিত প্রচন্ড অলস, অকর্মন্য এবং পড়াশোনাতে একেবারে অমনোযোগী। তাই মনির সাহেব ছেলের শিক্ষার জন্য অনেক শিক্ষক নিয়েগ করলো। অসংখ্য বইপত্র কেনা হলো, ঘরের ভেতরে খাতা কলমের পাহাড় লাগিয়ে দেওয়া হলো। ভালো শিক্ষার জন্য নামকরা বিদ্যালয়ে ভর্তি করা হলো। বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য নতুন গাড়ি কেনা হলো। সে এক এলাহী ব্যবস্থা। এতো সব ব্যবস্থা দেখে সকলে মনির সাহেবের প্রশংসা করিতে লাগিল।

 

Next Chapter Solutions : 

👉 গুরুচণ্ডালী
👉 বুলু
👉 মানুষের মন
👉 আদুভাই
👉 অলক্ষুণে জুতো
👉 উনিশ শ’ একাত্তর
👉 বিচার নেই
👉 চরু

Updated: September 7, 2023 — 6:43 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *